top of page
  • Writer's pictureLacsb.com

বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করার আইনগত প্রয়োজনীয়তা কী?

Updated: Mar 5, 2023

বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করা একটি ভয়ঙ্কর কাজ হতে পারে, সম্প্রতি সেটি নিয়মিত প্রয়োজনীয় আইনগুলির সাথে সম্পর্কিত। এই নিবন্ধটি বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করার জন্য আইনগুলির ওভারভিউ উপস্থাপন করবে।


1. ব্যবসা নিবন্ধন:


বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করার প্রথম পদক্ষেপ হল রেজিস্ট্রার অফ জয়েন্ট স্টক কোম্পানিস অ্যান্ড ফার্মস (আরজেএসসি) এর সাথে ব্যবসার নিবন্ধন। একক মালিকানাধীনতা, সমঝোতা এবং লিমিটেড লিয়াবিলিটি কোম্পানির মতো সকল ধরণের ব্যবসা ইত্যাদি রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। ব্যবসা মালিকদের প্রয়োজনীয় ফরমগুলি পূরণ করে আরজেএসসির কাছে জমা দিতে হবে এবং সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রগুলি সম্পর্কিত হতে হবে।



2. ট্রেড লাইসেন্স:


আরজেএসসির সাথে ব্যবসা নিবন্ধন করার পরে, ব্যবসার মালিককে স্থানীয় সরকারের অনুমতি প্রাপ্ত করে ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্ত করতে হবে। লাইসেন্স প্রতিবছর নবায়ন করতে হবে। ট্রেড লাইসেন্সের আবেদনপত্রে ব্যবসা নিবন্ধন সনদ, ভাড়া চুক্তি বা সম্পত্তি স্বত্বতা নথিপত্র এবং একটি আবেদন ফি থাকতে হবে।



৩. কর নিবন্ধনঃ


ব্যবসা পরিচালনার শুরুতেই ব্যবসার মালিকদের জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (NBR) এর সাথে করের উদ্দেশ্যে নিবন্ধিত হতে হবে। নিবন্ধন প্রক্রিয়াটি ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (TIN) এবং ভ্যাট নিবন্ধন প্রাপ্ত করতে হবে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিককে RJSC থেকে ব্যবসা পরিচালনার আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (BIN) ও প্রাপ্ত করতে হবে।



4. পরিবেশ অনুমতি সনদ:


পরিবেশের উপর প্রভাব ফেলতে পারে সেসমস্ত ব্যবসার জন্য পরিবেশ অনুমতি সনদ (ECC) অবশ্যই নিতে হবে। ECC এর জন্য আবেদনপত্রে প্রকল্প প্রস্তাব এবং পরিবেশ প্রভাব মূল্যায়ন রিপোর্ট সংযুক্ত করতে হবে।



5. বিদেশীদের জন্য কাজের অনুমতির জন্যঃ


বাংলাদেশে কোন বিদেশী যদি কাজ করতে চান তবে তারা বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিদা) থেকে একটি কাজের অনুমতি অর্জন করতে হবে। এই কাজের অনুমতি একটি বছরের জন্য বৈধ এবং প্রতি বছর নবায়ন করা যাবে।



6. ব্যাংক হিসাবঃ


ব্যবসার মালিকদের ব্যবসার নামে একটি ব্যাংক হিসাব খোলতে হবে। এই হিসাবটি ব্যবসার সম্পর্কিত সমস্ত আর্থিক লেনদেনের জন্য ব্যবহৃত হবে।



7. বীমাঃ


ব্যবসার মালিকদের তাদের ব্যবসা জন্য একটি বীমা প্রাপ্ত করতে হবে। বীমার মধ্যে অগ্নি বীমা, দায়ের বীমা এবং ব্যবসা বিরতি বীমা থাকতে পারে।



8. শ্রম আইন পালনঃ


ব্যবসার মালিকদের বাংলাদেশের শ্রম আইন অনুসারে কাজ করতে হবে। এই আইনগুলি নিম্নলিখিতগুলি অন্তর্ভুক্ত করেঃ সর্বনিম্ন মজুরীর প্রয়োজনীয়তা, কর্মদিবসের সময়, ছুটির সুবিধা এবং কারখানা সুরক্ষা বিধিমালা।



9. বুদ্ধিমত্তা সম্পত্তির অধিকারঃ


ব্যবসার মালিকদের তাদের বুদ্ধিমত্তা সম্পত্তির অধিকার রক্ষা করতে হবে। এটি প্যাটেন্ট, ট্রেডমার্ক এবং কপিরাইট অর্জন ব্যবস্থা করতে সম্পর্কিত হতে পারে।


সংক্ষেপে বলতে গেলে, বাংলাদেশে একটি ব্যবসা শুরু করতে কয়েকটি আইনগুলি অনুসরণ করতে হয়। ব্যবসার মালিকদের কার্যকরী করতে হবে ব্যবসা নিবন্ধন, ট্রেড লাইসেন্স অর্জন, কর কার্যকরী হওয়ার জন্য নিবন্ধিত হওয়া, প্রযোজ্য হলে ইসিসি অর্জন করা, প্রয়োজন হলে বিদেশীদের জন্য কাজের অনুমতি অর্জন করা, একটি ব্যাংক হিসাব খোলা, বীমা অর্জন করা, শ্রম আইন অনুযায়ী কর্মীদের পালন করা এবং তাদের বুদ্ধিমত্তা সম্পত্তির অধিকার রক্ষা করা প্রয়োজন। ব্যবসার মালিকদের সমস্ত আইনগুলি অনুসরণ করার নিশ্চয়তা নিশ্চিত করতে ব্যবসার মালিকদের আইনগত এবং হিসাবরক্ষণ পেশাদারদের সাথে পরামর্শ করা উচিত।




Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating
bottom of page